মোশাররফ করিমের জীবনী, বাংলা | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List

মোশাররফ করিমের জীবনী, বাংলা | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List। কে এম মোশাররফ করিম (জন্ম ২২ আগস্ট ১৯৭১) একজন বাংলাদেশী অভিনেতা, তার অভিনীত প্রথম নাটক অতিথি। তিনি বাংলা চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। তার প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্র জয়যাত্রা। পরবর্তীতে তিনি রূপকথার গল্প (২০০৬), দারুচিনি দ্বীপ (২০০৭), থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার (২০০৯), প্রজাপতি (২০১১), টেলিভিশন (২০১৩), জালালের গল্প (২০১৫), এবং অজ্ঞাতনামা (২০১৬), হালদা(২০১৭), কমলা রকেট (২০১৮) চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।

জাত অভিনেতা এই শব্দটি খুব কম মানুষই অর্জন করতে পারেন। দীর্ঘ পরিশ্রম ও সংগ্রামের পর মোশারেফ করিম আজ ভারতে ও বাংলাদেশে পেয়েছেন অসামান্য সফলতা।

মোশাররফ করিমের জীবনী, বাংলা | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List

 

মোশাররফ করিমের জীবনী, বাংলা | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List

 

মোশাররফ করিম ১৯৭১ সালের ২২ আগস্ট বাংলাদেশের ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈতৃক বাড়ি বরিশালের গৌরনদী থানার পিঙ্গলাকাঠী গ্রামে। বাংলাদেশী ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার-এ দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন যে তার অভিনয়ে দক্ষতা জন্ম নেয় তার স্কুল থিয়েটারে। ১৯৮৬ সালে মাধ্যমিক পাশ করেন। তখন থেকে তার অভিনয়ের প্রতি ভালবাসা অন্য মাত্রা নেয় ও তিনি তারিক আনাম খান-এর নাট্যকেন্দ্র মঞ্চদলে যোগদান করেন। তিনি এখনও এই নাট্যদলের সদস্য।

 

সম্পূর্ণ নাম K M Mosharraf Karim (কে এম মোশারফ করিম)
ডাক নাম Mosharraf
জন্ম তারিখ 22 আগস্ট,1971
জন্ম স্থান খালিগাওঁ, ঢাকা

Khaligaon, Dhaka

নাগরিকতা বাংলদেশী

Bangladeshi

জীবিকা অভিনেতা

Actor, Comedian

রাশি Leo
বয়স ৫০ বছর (50 years)

 

মোশারফ করিম বাংলা জীবনী | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List

 

মোশারফের শিক্ষাগত তথ্য:

মহাবিদ্যালয় ঢাকা কলেজ, বরিশাল সরকারি কলেজ

Dhaka college, Government Barisal college

শিক্ষাগত যোগ্যতা : স্নাতক(Graduate)

 

মোশারফের ধর্মীয় তথ্য:

মোশাররফ করিম ইসলাম ধর্মের অনুসারী।

 

মোশারফ করিম বাংলা জীবনী | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List

 

মোশারফের শারীরিক মাপ:

উচ্চতা: ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি (5 feet 3 inches)
ওজন: (৬০ কেজি -৬৫ কেজি)
60 kg- 65 kg
চুলের রঙ: কালো (Black)
ট্যাটু: No

 

পেশা সম্পর্কিত তথ্য:

প্রথম চলচ্চিত্র: জয়যাত্রা (২০০৪) | Joyjatra(2004)

পুরস্কার : Meril Prothom Alo Awards for Best TV Actor (সাল : 2008,2009,2010,2011,2012,2013,2014)

 

মোশারফের ব্যক্তিগত সম্পর্ক তথ্য:

পরিবার: Abdul Karim (পিতা)
স্ত্রী : Robena Reza Jui
সন্তান: Roben Rayan Karim

 

মোশারফ করিম বাংলা জীবনী | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List

 

মোশাররফের সম্পত্তি:

বাড়ি: বিলাসবহুল ঢাকা এপার্টমেন্ট (১২ কোটি)
এছাড়া ঢাকার বাইরেও তার বাড়ি আছে
Luxurious Dhaka Apartment (12 cr)
গাড়ি: Prado, Toyota, Corolla
আর্থিক পরিসংখ্যান
সর্বমোট অর্থ: ৯৫ কোটি
চলচ্চিত্র পিছু প্রাপ্য: নাটক প্রতি ১ লাখ, সিনেমা প্রতি ১.২০ লাখ

 

মোশারফ করিমের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্রোফাইল:

Facebook  Facebook
  Instagram  Instagram
Twitter Twitter
IMDB Mosharraf IMDB

 

 

মোশারফ করিম বাংলা জীবনী | Mosharraf Karim Biography in Bengali | Age, Height, Parents, Wife, Movies, Natok | Mosharraf Karim Natok List

 

বিতর্ক অজানা তথ্য সমূহ:

১. ছোট থেকেই তিনি অভিনয়ের প্রতি আগ্রহী ছিলেন

২. তার পিতা এখন বাংলাদেশ বিখ্যাত অভিনেতা হতে চেয়েছিলেন

৩. তার স্বপ্ন পূরণ করেন তার অষ্টম পুত্র মোশারেফ করিম

৪. তিনি বাংলাদেশের প্রথম অভিনেতা যিনি পর্তুগাল থেকে অ্যাওয়ার্ড পান

 

নেট দুনিয়ায় করা কিছু প্রশ্ন (FAQ)

  • What is the name of Mosharraf Karim’s wife? | উত্তর: Robena Reza Jui
  • How old is Mosharraf Karim? | উত্তর: 50 years
  • Where is Mosharraf Karim from? | উত্তর: Dhaka, Bangladesh

 

মোশাররফের অভিনয় জীবন:

টেলিভিশন:

মোশাররফ করিম ১৯৯৯ সালে এক পর্বের নাটক অতিথি-এ অভিনয়ের মাধ্যমে ছোট পর্দায় আগমন করেন। এই নাটকটি ফেরদৌস হাসান পরিচালনা করেন এবং এটি চ্যানেল আই-এ প্রচারিত হয়। নাটকে তার সত্যিকার পথচলা শুরু হয় ২০০৪ সাল থেকে। ২০০৪ সালে তিনি দুটি নাটকে অভিনয় করেন, যা অভিনয়জগতে তাকে এক অধ্যবসায়ী চরিত্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে। তিনি বিখ্যাত টেলিফিল্ম ক্যারাম-এ তিশার বিপরীতে অভিনয় করেন। এরপর থেকেই তিনি বিভিন্ন নাটক এবং মেগা-ধারাবাহিকে অভিনয় শুরু করেন।

২০০৮ সালে তিনি দেয়াল আলমারি নাটকে অভিনয় করেন। এই নাটকের জন্য তিনি মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার-এ সমালোচক শাখায় সেরা টিভি অভিনয়শিল্পী (পুরুষ) বিভাগে পুরস্কৃত হন। তিনি তার প্রথম মেগা-ধারাবাহিক ৪২০-এ অভিনয় করেন। এই নাটকটি চ্যানেল আই-এ প্রচারিত হয়। এরপর তিনি জনপ্রিয় ধারাবাহিক ভবের হাট, ঘর-কুটুম-এ অভিনয় করেন। এছাড়াও তিনি জিম্মি, দুই রুস্তম, অন্তনগর, ফ্লেক্সিলোড, কিংকর্তব্যবিমূঢ়, আউট অফ নেটওয়ার্ক, সাদা গোলাপ, ৪২০, জুয়া, সুখের অসুখ, সিরিয়াস কথার পরের কথা, সন্ধান চাই, ঠুয়া, লস, সিটি লাইফ, বিহাইন্ড দ্যা সিন, তালা, শূন্য পিক পকেট, ফাউল, জাঁতাকল নাটক ও টেলিফিল্মে অভিনয় করেন। ২০০৯ সালে হাউজফুল নাটকে অভিনয়ের জন্য তারকা জরিপে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেন।

২০১১ সালে চাঁদের নিজস্ব কোন আলো নেই নাটকে অভিনয়ের জন্য তারকা জরিপে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেন। ২০১২ সালে ঈদে প্রচারিত হয় মাসুদ সেজান পরিচালিত সুখ-টান খণ্ড ধারাবাহিক নাটক। এতে তার বিপরীতে প্রথমবারের মত অভিনয় করেন মোজেজা আশরাফ মোনালিসা এ বছর জর্দ্দা জামাল নাটকে অভিনয়ের জন্য সমালোচকদের বিচারে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার লাভ করেন। ২০১৩ সালে ঈদে প্রচারিত হয় শামস কবির পরিচালিত মিরজাফর মীর নাটকে। এই বছর সেই রকম চা খোর নাটকে অভিনয়ের জন্য মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার-এ সমালোচকদের বিচারে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পীর পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া সিকান্দার বক্স এখন বিরাট মডেল নাটকে অভিনয়ের জন্য তারকা জরিপে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেন।

২০১৪ সালে এনটিভিতে প্রচারিত হয় তুমি কি এখনো আমার তুমি। ঈদুল আযহায় বাংলাভিশনে প্রচারিত হয় নাটক রকস্টার। এছাড়া আরটিভিতে প্রচারিত হয় সেই রকম পানখোর। এই নাটকে অভিনয়ের জন্য তারকা জরিপে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেন।

২০১৫ সালের ঈদুল ফিতরে প্রচারিত হয় চাঁদের চন্দ্রবিন্দু নেই নাটকটি। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেন আজমেরী আশা। আরটিভিতে প্রচারিত হয় শামস করিম পরিচালিত নাটক হিটার। ঈদুল আযহায় এনটিভিতে প্রচারিত হয় তুহিন হোসেন পরিচালিত প্রেম অথবা দুঃস্বপ্নের রাত-দিন। এই নাটকে তিনি প্রথমবারের মত তার বিপরীতে অভিনয় করেন চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা। আরটিভিতে প্রচারিত হয় ‘সিকান্দার বক্স’ সিরিজের শেষ খণ্ডসিকান্দার বক্স এখন নিজ গ্রামে। সিকান্দার বক্স এখন নিজ গ্রামে নাটকে অভিনয়ের জন্য তারকা জরিপে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার লাভ করেন।

২০১৬ সালে অভিনয় করেন আমার ইচ্ছে করে না, হাইপথেসিস নাটকে। মুন্সী প্রেমচাঁদের গল্প অবলম্বনে নির্মিত ঘাট কাপড় টেলিফিল্মে এক মাতালের চরিত্রে অভিনয় করেন। এছাড়া অভিনয় করেন লড়াই, ঝামেলা আনলিমিটেড, এই কূলে আমি আর ওই কূলে তুমি, বহুরূপী ধারাবাহিক নাটকে। ঈদুল ফিতরে চ্যানেল আই তার অভিনীত সাতটি নাটক নিয়ে ‘মোশাররফ করিম কমেডি ফেস্ট’ প্রচার করে ঈদের সাতদিন। নাটক সাতটি হল চোরের একদিন, প্রেমের নাম বেদনা, মায়াবতী, কারেন্ট গেলে ভয় পাবেন না, পাপ, একটা লাইক দেবেন প্লিজ, ও জ্বি স্যার ঠিক বলছেন। আরটিভিতে প্রচারিত হয় আজাদ কালাম পরিচালিত যমজ ৫। এছাড়া বাংলাভিশনে প্রচারিত অ্যাভারেজ আসলাম, বৈশাখীতে প্রচারিত কিড সোলায়মান, আরটিভিতে প্রচারিত তলোয়ার এবং অন্য একটি চ্যানেলে প্রচারিত চান্স মাস্টার খণ্ড ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন।

২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে বাংলাভিশনে প্রচারিত ও ডাক্তার নাটকে তাকে একজন ডাক্তারের ভূমিকায় দেখা যায়, যিনি তার এক রোগীর সাথে আসা তার বোনের (সারিকা সাবাহ) প্রেমে পড়েন। বিজয় দিবসে নাগরিক টিভিতে তাকে সৈয়দ শামসুল হকের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত নীল দংশন নাটকে অভিনয় করতে দেখা যায়।

 

চলচ্চিত্র:

মোশাররফ করিম নাটকের পাশাপাশি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। ২০০৪ সালে আমজাদ হোসেন রচিত উপন্যাস অবলম্বনে তৌকির আহমেদ নির্মিত জয়যাত্রা চলচ্চিত্রে একজন ময়রার চরিত্রে অভিনয় করেন। এটি তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র। ২০০৬ সালে তিনি আবার তৌকির আহমেদ পরিচালিত রূপকথার গল্প-এ অভিনয় করেন। এই চলচ্চিত্রে তিনি একজন পকেটমার চরিত্রে অভিনয় করেন। পরের বছর জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ রচিত দারুচিনি দ্বীপ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত দারুচিনি দ্বীপ-এ অভিনয় করেন। এই ছায়াছবিটিও পরিচালনা করেছেন তৌকির আহমেদ।

২০০৯ সালে তিনি মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার ছায়াছবিতে নুসরাত ইমরোজ তিশার বিপরীতে অভিনয় করেন। ২০১১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত প্রজাপতি ছায়াছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন। মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত এই ছায়াছবিতে তিনি মৌসুমীর বিপরীতে অভিনয় করেন। ২০১৩ সালে তিনি মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত টেলিভিশন ছায়াছবিতে অভিনয় করেছেন। পরবর্তীতে তিনি অভিনয় করেন আবু শাহেদ ইমন পরিচালিত আলোচিত চলচ্চিত্র জালালের গল্প-এ। চলচ্চিত্রটি কয়েকটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। ২০১৫ সালে এই চলচ্চিত্রে জালালের বড় ভাই চরিত্রে অভিনয় করে তিনি আভাঙ্কা চলচ্চিত্র উৎসবের ১৯তম আসরে শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার অর্জন করেন।

২০১৬ সালে তিনি তৌকির আহমেদ পরিচালিত চতুর্থ চলচ্চিত্র অজ্ঞাতনামায় একজন পুলিশ কর্মকর্তার ভূমিকায় অভিনয় করেন। পরের বছর তিনি তৌকিরের পরিচালনায় হালদা চলচ্চিত্রে জেলে বদিউজ্জামাল চরিত্রে অভিনয় করেন। দেশের বৃহত্তম প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র হালদা নদীকে ঘিরে ছবিটি নির্মিত হয়েছে। তার অভিনীত নূর ইমরান মিঠু পরিচালিত কমলা রকেট চলচ্চিত্রটি ঐতিহ্যবাহী গোয়াতে অনুষ্ঠিত ভারতীয় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ৪৯তম আয়োজনে প্রদর্শিত হয়। এই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি ৪২তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ কৌতুকাভিনয়শিল্পী বিভাগে পুরস্কারের জন্য ঘোষিত হন, কিন্তু তিনি চরিত্রটি কৌতুক চরিত্র নয় দাবী করে এই পুরস্কারটি প্রত্যাখ্যান করেন।

 

আর পড়ুনঃ

মন্তব্য করুন